প্রচ্ছদ / রাজশাহী / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

বেতারের যে কার্যালয়ে শীর্ষ সব পদে নারী

কারেন্ট নিউজ বিডি   ৮ মার্চ ২০১৮, ১০:৩১:১৩

বাংলাদেশ বেতারের রাজশাহী কেন্দ্রে পরিচালকের দায়িত্বে রয়েছেন একজন নারী। এ কেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী ও প্রধান বার্তা নিয়ন্ত্রকও নারী। এখানেই শেষ নয়, কেন্দ্রটির উপ-আঞ্চলিক পরিচালক ও সহকারী আঞ্চলিক পরিচালকের দায়িত্বে রয়েছেন যারা, তারাও নারী। এ নারী কর্মকর্তারাই বাংলাদেশ বেতারের রাজশাহী কেন্দ্রে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

বাংলাদেশ বেতার রাজশাহীর আঞ্চলিক কার্যালয়ের পরিচালক হলেন তৌহিদা চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী ফারজানা আফরোজ, প্রধান বার্তা নিয়ন্ত্রক উম্মে কুলসুম, উপ-আঞ্চলিক পরিচালক শিউলি রাণী বসু। এছাড়া সহকারী আঞ্চলিক পরিচালকের দায়িত্বে আছেন তিন জন নারী। তারা হলেন– নাসরীন বেগম, তনুশ্রী স্যানাল ও ফারজানা ইয়াসমিন।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

রাজশাহী বেতারের আঞ্চলিক কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১৯৬৩ সালে বাংলাদেশ বেতারের যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে এর ১২টি আঞ্চলিক কার্যালয় রয়েছে। কিন্তু একমাত্র রাজশাহী বেতার কেন্দ্রে শীর্ষ পদগুলোতে নারীরা রয়েছেন।

বাংলাদেশ বেতারের রাজশাহী অঞ্চলের পরিচালক তৌহিদা চৌধুরী বলেন, ‘বর্তমান সরকার যেসব এজেন্ডা নিয়ে এ দেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ বানাতে চায়, তার মধ্যে একটি হচ্ছে নারীর ক্ষমতায়ন। বাংলাদেশ বেতার রাজশাহীর তিনটি প্রধান শাখার দায়িত্বে তিন নারী কর্মকর্তা থাকার মধ্যে দিয়ে প্রমাণিত হয়, এই সরকার নারীর ক্ষমতায়নের পথ ধরেই এগিয়ে যাচ্ছে।’

এ কার্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী ফারজানা আফরোজ বলেন, ‘এ সরকারের নেতৃত্বে বাংলাদেশ অনেকগুলো সূচকে এগিয়ে যাচ্ছে। নারীর ক্ষমতায়ন তার মধ্যে একটি। এদেশের নারীরাও যে সমান দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে পারেন, আমরাই তার প্রমাণ।’

প্রধান বার্তা নিয়ন্ত্রক উম্মে কুলসুম বলেন, ‘আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী নারী, স্পিকার নারী। এছাড়া বাংলাদেশের প্রায় সব সেক্টরেই নারীরা কাজ করছেন। এটি সরকারের নারীর ক্ষমতায়নের যে এজেন্ডা আছে, তারই বাস্তব প্রতিফলন।’

১৫তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বাংলাদেশ বেতারের চাকরিতে যোগদান করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগ থেকে পড়াশোনা করা তৌহিদা চৌধুরী। এরপর বাংলাদেশ বেতারের বিভিন্ন কার্যালয়ের নানা শাখায় কাজ করেছেন। ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি বাংলাদেশ বেতারের আঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রধান হিসেবে যোগদান করেন। তারপর থেকেই পরিচালনার প্রতিটি ক্ষেত্রেই রাখছেন দক্ষতার স্বাক্ষর। বেতার নিয়ে তার রয়েছে নানা স্বপ্ন ও পরিকল্পনা।

তৌহিদা চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশের তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছেছে এমন একটিই গণমাধ্যম রয়েছে, বেতার। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খেলাধুলাসহ সরকারের উন্নয়নমূলক নানা কর্মকাণ্ড প্রচার করছে বেতার। একইসঙ্গে শিক্ষামূলক কর্মকাণ্ড প্রচার করছে, একইসঙ্গে সচেতন করছে জনসাধারণকেও। পাশাপাশি বিনোদনমূলক সূচি তো রয়েছেই। আগামী দিনে বেতারকে যেন আরও বেশি গণমানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়, সেই লক্ষ্যেই কাজ করছি আমি।’

২০তম বিসিএসের মাধ্যমে বাংলাদেশ বেতারের প্রকৌশলী হিসেবে যোগদান করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক্সে পড়াশোনা করা ফারজানা আফরোজ। প্রকৌশলী হিসেবে বেতারকে কত সহজভাবে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছানো যায়, তাই নিয়েই তিনি ভেবেছেন নিরন্তর। আঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রকৌশল বিভাগের দায়িত্ব নেওয়ার পর সম্প্রচার শাখাকে করেছেন আরও বেশি গতিশীল। এছাড়া, বেতার কার্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়নেও রেখেছেন দক্ষতার স্বাক্ষর। পুরো কার্যালয়কে সিসি ক্যামেরার আওতাভুক্ত করা, কার্যালয়ের ভেতরের এবং বাইরের সৌন্দর্য বর্ধন, কার্যালয়ে নতুন এসি লাগানো, তরঙ্গের মান উন্নয়নসহ সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ে রয়েছে তার ভূমিকা।

ফারজানা আফরোজ বলেন, ‘আঞ্চলিক কার্যালয়ের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই সম্প্রচার বিভাগকে আরও বেশি গতিশীল করা নিয়ে ভাবনা ও কাজ শুরু করি। আমি মনে করি, রাজশাহী বেতারের সম্প্রচার বিভাগ অনেক উন্নত।’

রাজশাহী কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগ থেকে পড়াশোনা করা উম্মে কুলসুম বাংলাদেশ বেতারের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রকের পদবিতে যোগদান করেন ২৮তম বিসিএসের মাধ্যমে। ২০১১ সালে আগস্টে বাংলাদেশ বেতার রাজশাহীর উপ-বার্তা নিয়ন্ত্রকের দায়িত্ব নেন তিনি। আর এখন দায়িত্ব পালন করছেন আঞ্চলিক বার্তা নিয়ন্ত্রকের। তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই সংবাদ শিল্পী গঠন, যারা বেতারে সংবাদ প্রেরণ করেন তাদের সম্মানী বৃদ্ধি, সংবাদ পাঠকদের মান উন্নয়ন থেকে শুরু করে নিউজের সংখ্যাও করেছেন বৃদ্ধি।

তিনটি শাখার প্রধান তিন নারী কর্মকর্তাকে পেয়ে উচ্ছ্বসিত তার সহকর্মীরাও। তারাও এটিকে বর্তমান সরকারের নারীর ক্ষমতায়নের যে লক্ষ্য ছিল তার বাস্তবায়ন হিসেবে দেখছেন।

বাংলাদেশ বেতার রাজশাহীর উপ-আঞ্চলিক পরিচালক হাসান আখতার বলেন, ‘তিন নারী কর্মকর্তাকে পেয়ে আমরা খুশিই। তাদের নেতৃত্বে কাজ আগের চেয়ে অনেক বেশি পরিকল্পনামাফিক ও সফলভাবে সম্পন্ন হচ্ছে। আমরা সহকর্মীরা সবাই কাজকে দারুণভাবে উপভোগ করছি।’

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: