প্রচ্ছদ / অর্থনীতি / বিস্তারিত

রিহ্যাবের আবাসন মেলা

অনেক আবাসন প্রতিষ্ঠান প্লট ও ফ্ল্যাটের বুকিং পেয়েছে

৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৮:৩০:৪৮

রূপায়ন সিটি উত্তরার স্টলে খোঁজখবর নিচ্ছেন ক্রেতারা।

পাঁচ দিনব্যাপী রিহ্যাবের আবাসন মেলা জমে উঠেছে। ক্রেতারা মেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের স্টলে চাহিদা অনুযায়ী ফ্ল্যাট খুঁজছেন। মেলায় কোনো ফ্ল্যাট পছন্দ হলে পরে সরেজমিনে সেই ফ্ল্যাট দেখতে যাচ্ছেন। অধিকাংশ ক্রেতাই ঢাকার ভেতরে এক কোটি টাকার নিচে ফ্ল্যাট চান। মেলায় দু-একটি বাদে সব প্রতিষ্ঠানই ক্রেতাদের এই চাহিদা অনুযায়ী ফ্ল্যাট দিতে পারছে।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে আবাসন ব্যবসায়ীদের সংগঠন রিহ্যাব আয়োজিত আবাসন মেলায় গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্যই জানা গেল। গত বুধবার মেলা শুরু হয়েছে। চলবে রোববার পর্যন্ত। এবারের মেলায় অংশ নিয়েছে ২০২টি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে আবাসন প্রতিষ্ঠান রয়েছে ১৬৮ টি।

আবাসন প্রতিষ্ঠান রাকিন মিরপুর ও কাঁচপুরে দুই কনডোমেনিয়াম প্রকল্পের ফ্ল্যাট বিক্রির জন্য নিয়ে এসেছে। উভয় প্রকল্পেই চওড়া সড়ক, স্কুল, মসজিদ, সুইমিং পুল, একাধিক খেলার মাঠ, বাণিজ্যিক ভবন, ক্লাব ভবনসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা আছে। মিরপুরের বিজয় রাকিন সিটিতে ১ হাজার ৯৫০টি ফ্ল্যাটের মধ্যে ৫০-৬০টি অবিক্রীত আছে। সেগুলোর আয়তন ১ হাজার ৫৫৩ থেকে ১ হাজার ৮৭২ বর্গফুট। প্রতি বর্গফুটের দাম সাড়ে ছয় হাজার থেকে আট হাজার টাকা। তাতে ফ্ল্যাটের মূল্য দাঁড়াবে ১ কোটি ৫ লাখ থেকে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা। অন্যদিকে দেড় শ বিঘা জমির ওপর কাঁচপুরের প্রকল্পে সাড়ে ৫ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করবে প্রতিষ্ঠানটি। আগামী অক্টোবরে প্রকল্পটির কাজ শুরু হবে। ২০২৩ সাল থেকে প্রকল্পের ফ্ল্যাট হস্তান্তর শুরু হবে। ৯০০ থেকে ১ হাজার ৬৫০ বর্গফুট আয়তনের এসব ফ্ল্যাটের প্রতি বর্গফুটের মূল্য ৪ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা। তাতে ফ্ল্যাটের দাম পড়বে ৪০ থেকে ৯০ লাখ টাকার মধ্যে।

জানতে চাইলে রাকিনের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক মিজানুর রহমান বলেন, ‘অধিকাংশ ক্রেতাই প্রতি বর্গফুট ৪ থেকে ৫ হাজার টাকার মধ্যে ফ্ল্যাট চান। তাঁদের কথা মাথায় রেখেই আমরা কাঁচপুরের ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে প্রকল্পটি হাতে নিয়েছি। সেখানে ৪০ লাখ টাকায় ফ্ল্যাট কিনতে পারবেন ক্রেতারা।’

মেলায় এক কোটি টাকার মধ্যে বেশ কিছু ফ্ল্যাট নিয়ে এসেছে কমপ্রিহেনসিভ হোল্ডিংস। কাঁঠালবাগান, মালিবাগ, পশ্চিম ধানমন্ডি, ইন্দিরা রোড, রাজাবাজার, হাতিরপুলে ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট রয়েছে তাদের। এ ছাড়া ধানমন্ডি, লালমাটিয়া, বনানী, ইকবাল রোড, উত্তরা, বসুন্ধরা, মিরপুরে ১ হাজার ২০০ থেকে ৩ হাজার বর্গফুট আয়তনের ফ্ল্যাট আছে তাদের। এসব ফ্ল্যাটের প্রতি বর্গফুটের মূল্য ৭ থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত। মেলা উপলক্ষে ক্রেতাদের জন্য ১০ শতাংশ মূল্যছাড়ের সুবিধা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। পাশাপাশি ফ্ল্যাট কিনতে গৃহঋণ নেওয়ার বিষয়েও ক্রেতাদের সহযোগিতা করে তারা। এসব তথ্য জানিয়ে কমপ্রিহেনসিভের উপব্যবস্থাপক আরিফুল হক বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ১০ থেকে ১৫ জন ক্রেতা আমাদের ফ্ল্যাট কেনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।’

উত্তরায় ১৩৫ বিঘা জমির ওপর ‘রূপায়ণ সিটি উত্তরা’ গড়ে তুলছে রূপায়ণ হাউজিং এস্টেট। সেখানে সাধারণ ফ্ল্যাট, ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাট, সুইমিং পুলসহ ফ্ল্যাট আছে ১ হাজার ১৪৯ টি। ১ হাজার ৮৬৫ বর্গফুট থেকে শুরু করে বিভিন্ন আকারের ফ্ল্যাট রয়েছে সেখানে। প্রকল্পটিতে ক্লাব হাউস, মসজিদ, বাণিজ্যিক ভবনসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা আছে। এসব তথ্য জানিয়ে প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন বলেন, ‘প্রকল্পটির ৪০ শতাংশ ফ্ল্যাট আমরা মেলায় বিক্রি করব। তাই মেলায় বুকিং দিলে ক্রেতাদের জন্য বিশেষ মূল্যছাড়ের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।’

রাজধানীর মোহাম্মদপুর, ইকবাল রোড, ধানমন্ডি, গুলশান, বারিধারা, উত্তরা, বাড্ডা ও মিরপুরে ৩৫টি প্রকল্পে ১ হাজার ২০০-এর বেশি ফ্ল্যাট আছে অ্যাসুরেন্স ডেভেলপমেন্টসের। তাদের প্রতি বর্গফুট ফ্ল্যাটের মূল্য ১ হাজার ১৯০ থেকে ১৮ হাজার টাকা পর্যন্ত। মেলায় প্রস্তুত ফ্ল্যাটে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড় দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। এ ছাড়া এক কোটি টাকার নিচে তাদের ফ্ল্যাট আছে মোহাম্মদপুর ও বাড্ডায়।

জানতে চাইলে অ্যাসুরেন্সের কর্মকর্তা আবু ওবায়দা জুবায়ের বলেন, ‘মেলায় বেশ কয়েকজন ক্রেতা আমাদের ফ্ল্যাট কেনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে কয়েকজন সরেজমিনে প্রকল্প দেখতে গেছেন। সব মিলিয়ে ভালো সাড়া মিলছে।’ তিনি বলেন, সারা বছরের মধ্যে মেলাতেই বেশি ফ্ল্যাট বিক্রি হয়।

ফ্ল্যাটের পাশাপাশি মেলায় প্লটও প্রদর্শন করছে প্রবাসী পল্লি গ্রুপ। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে আড়াই হাজার বিঘা জমির ওপর তারা গড়ে তুলছে পূর্বাচল প্রবাসী পল্লি। সেখানে ৩,৪, ৫,৭ ও ১০ কাঠা আয়তনের প্লট আছে। এককালীন অর্থ পরিশোধে প্রতি কাঠার দাম পড়বে ৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। কিস্তিতে কিনলে প্রতি কাঠায় মাসিক কিস্তি হবে ৩ হাজার ৮৭৫ টাকা। প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের প্রকল্পের বেশ কিছু প্লট প্রস্তুত হয়ে গেছে। আমরা ইতিমধ্যে প্লট বুঝিয়ে দিতে ক্রেতাদের চিঠি দেওয়া শুরু করেছি।’

এদিকে গত দুই দিনে প্রায় ৫ হাজার ক্রেতা-দর্শনার্থী মেলায় এসেছেন বলে জানান রিহ্যাবের ফেয়ার স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান শাকিল কামাল চৌধুরী। তিনি বলেন, মেলায় ক্রেতা সমাগম বেশ ভালোই। শেষদিন রবিবার প্রচুর ক্রেতা-দর্শনার্থীর সমাগম ঘটবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: