আমাদের লড়াই জঙ্গিদের সঙ্গে, কাশ্মীরিদের বিরুদ্ধে নয়: মোদি

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৫:৪০:০২

পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর কাশ্মীরে শুরু হয়েছে তল্লাশি অভিযান। শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) শ্রীনগরে পাঠানো হয়েছে ১০,০০০ আধাসেনা। আটক করা হচ্ছে উপত্যকার বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের। এমতাবস্থায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সাফ জানিয়ে দিলেন, এ লড়াই কাশ্মীরিদের বিরুদ্ধে নয়। জঙ্গিদের সঙ্গে।

শনিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাজস্থানে এক সমাবেশে বক্তব্য রাখছিলেন মোদি। সেখানেই তিনি কাশ্মীর প্রসঙ্গ টেনে আনেন। বলেন, বিগত কয়েক দিন ধরে দেশের বিভিন্ন অংশে কাশ্মীরি ছাত্রদের সঙ্গে যা হচ্ছে তা হওয়া উচিত নয়। কাশ্মীরের যুবকরাও আতঙ্কবাদ নিয়ে অতিষ্ঠ। তারাও এই লড়াইয়ে সামিল হতে চায়। তাদের সঙ্গে নিতে হবে।

প্রসঙ্গত, পুলওয়ামা হামলার পর জম্মুতে শুরু হয় কাশ্মীরিদের ওপরে হামলা। তা এতটাই ভয়ঙ্কর আকার ধারন করে যে কারফিউ পর্যন্ত জারি করতে হয়। এরপর ওই ধরণের হামলার ঘটনা ছড়িয়ে পড়ে দেহরাদুন, পাঞ্জাব, পশ্চিমবঙ্গ, পুনে, পাটনাসহ ভারতের বিভিন্ন অংশে। বাধ্য হয়েই সুপ্রিম কোর্ট দেশের ১১টি রাজ্যকে নির্দেশ দেয় রাজ্যে কাশ্মীরিদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে।

পুলওয়ামা হামলার বড় দিক হল আত্মঘাতী জঙ্গি একজন কাশ্মীরি। এ নিয়ে বিভিন্ন মহলে আলোচনা শুরু হয়েছে। ২০০১ সালে জম্মু ও কাশ্মীর বিধানসভা একবার গাড়ি বোমা হামলা হয়েছিল। এবার ফের তা ঘটল। এ কথা মাথায় রেখেই কেন্দ্র রাজ্যের বিভিন্ন অংশে তল্লাশি চালিয়ে পাকপন্থী জঙ্গিদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে।

এ নিয়ে মোদি বলেন, সরকারের লড়াই কাশ্মীরিদের বিরুদ্ধে নয়। কাশ্মীরের জন্যই। আমার ভালো লাগছে এই ভেবে যে আমাদের সেনারা ১০০ ঘণ্টার মধ্যে হামলাকারীদের সেই জায়গায় পৌঁছে দিতে পেরেছে যেখানে তাদের যাওয়ার কথা।

সভায় মোদি প্রশ্ন তোলেন, মানবতার এইসব শত্রুদের উপযুক্ত শাস্তি হওয়া প্রয়োজন নাকি প্রয়োজন নেই। আতঙ্গবাদীদের এই কারখানায় তালা লাগানোর কাজ আমার কাঁধে এসে পড়ে তো কোনো দুঃখ নেই। আপনাদের এই সেবক তা করবে। সরকার তাদের খুঁজে খুঁজে শেষ করবে। এই সংকল্প শুধু মোদির নয়, গোটা দেশের। পুলওয়ামা হামলার পর আপনারা দেখেছেন কীভাবে একের পর এক পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। দেশে থেকে যারা বিচ্ছিন্নতাবাদকে উত্সাহ দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আমরা আতঙ্কবাদীদের গুঁড়িয়ে দিতেও জানি। সেনাকে আমরা পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছি।

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: