প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px

Call : +8801911140321

নুসরাত হত্যায় জড়িত সবাই ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মী: রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক   ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ৪:৩০:৫০

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির খুনিদের বাঁচাতে বিভিন্নভাবে তৎপরতা চলছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় জড়িত সবাই ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মী।এ ধরনের খবর এরই মধ্যে প্রকাশিত হচ্ছে। বিভিন্ন দিক থেকে হত্যা মামলার আসামি ও তাদের দোসরদের পক্ষে একটি গ্রুপ মাঠে নেমেছে।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

শনিবার (১৩ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সোনাগাজীর সেই মাদ্রাসা শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন শামীম, যুবলীগ নেতা নুর উদ্দিন, জাবেদ হোসেন, জোবায়ের আহমেদ, আব্দুল কাদের ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলা, সোনাগাজী পৌর কাউন্সিলর ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মকসুদুল হক ও প্রভাষক আবছার উদ্দিনের পক্ষে সাফাই গাইতে শুরু করেছে গ্রুপটি। তারা রাজনৈতিক নেতাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ধরণাও দিচ্ছে বলে গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সবাই ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মী।

নারী ও শিশু শিক্ষার্থীদের ওপর নির্যাতন থামছেই না দাবি করে তিনি বলেন, গতকাল শুক্রবারও বিভিন্ন স্থানে তিন স্কুলছাত্রীসহ পাঁচজনকে ধর্ষণ ও গণর্ধষনের খবর পাওয়া গেছে। গোপালগঞ্জে ধর্ষণের আলামত নষ্ট করতে হাসপাতাল থেকে এক শিক্ষার্থীকে অপহরণ করা হয়েছে। পাবনার চাটমোহরে এক শিক্ষার্থীকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে জনগণ। ইতিহাসে এই ধরনের সময়কালকেই বলা হয়েছে মাৎস্যন্যায়।’

রিজভী বলেন, সোনাগাজীর সেই মাদ্রাসা শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাদাত হোসেন শামীম, যুবলীগ নেতা নুর উদ্দিন, জাবেদ হোসেন, জোবায়ের আহমেদ, আব্দুল কাদের ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা, সোনাগাজী পৌর কাউন্সিলর ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাকসুদুল হক ও প্রভাষক আবছার উদ্দিনের পক্ষে সাফাই গাইতে শুরু করেছে ওই গ্রুপটি। তারা রাজনৈতিক নেতাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ধরনাও দিচ্ছে বলে গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে। ঘটনায় জড়িত সবাই ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মী।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ সবাই জানে ফেনী হলো ক্ষমতাসীন দলের সন্ত্রাসীদের নিরাপদ জনপদ। সেখানে আওয়ামী লীগের গডফাদারদের ছত্রছায়ায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রম চলে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। তারা তাদের নিজেদের দলের নেতাকেই আগুনে পুড়িয়ে ঝলসে দিয়েছে। সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য হিসেবে একসময় সারাদেশে আলোচিত হওয়া ফেনীতে রাজনৈতিক হত্যা, গুম, অপহরণ, দিনে-দুপুরে অস্ত্র উঁচিয়ে ছিনতাই, টেন্ডারবাজি, বালুমহাল লুট, বাসস্ট্যান্ডে চাঁদাবাজি, আধিপত্য বিস্তারে অস্ত্রের প্রকাশ্য মহড়া, সোনার দোকানে ডাকাতি, ব্যাংকের টাকা ছিনতাই ছিলো এখানকার নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হলেও সরকার নিয়ন্ত্রিত ওই হাসপাতালে প্রয়োজনমতো চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না। তার প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে না। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নেই, আর্থারাইটিস এর ব্যথা এখন প্রচণ্ড আকার ধারণ করেছে।

বিএসএমএমইউতে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য কোনও আধুনিক যন্ত্রপাতিও নেই বলে দাবি করে রিজভী বলেন, আমরা শুরু থেকেই খালেদা জিয়ার পছন্দ অনুযায়ী বিশেষায়িত হাতপাতালে চিকিৎসার দাবি জানিয়ে আসছি। কিন্তু সরকার তা আমলে নেয়নি বরং তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে মিথ্যাচার করছে যা পীড়াদায়ক।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়া সত্ত্বেও চিকিৎসা নিয়ে দেশবাসীর কাছে সঠিক তথ্য তুলে ধরা হয়নি মন্তব্য করে বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকারের মন্ত্রী ও নেতারা খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে প্রতিনিয়ত বিভ্রান্তিকর কথাবার্তা বলছেন। তার প্রতি এহেন আচরণ সরকারের প্রতিহিংসামূলক মনোবৃত্তিরই পরিচায়ক।

খালেদা জিয়াকে মুক্তি ও চিকিৎসায় বাধা দিচ্ছে সরকার দাবি করে রিজভী আরও বলেন, মূল কারণ একটাই বিএনপি চেয়ারপারসনকে কৌশলে দুনিয়া থেকে সরিয়ে আবারও পুরোপুরি বাকশালের নামে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা। আমি আবারও সরকারের উদ্দেশ্যে বলতে চাই- তাকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউ-তে ভর্তি করলেও সরকার নিয়ন্ত্রিত ওই হাসাপাতালে তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা হচ্ছে না অভিযোগ করে রিজভী বলেন, খালেদা জিয়ার প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে না। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নেই, অষ্ট্রীয়-আর্থ্রাইটিসের ব্যথা এখন তীব্র আকার ধারণ করেছে। বিএসএমএমইউ-তে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য কোনো আধুনিক যন্ত্রপাতিও নেই। আমরা শুরু থেকেই বিএনপি চেয়ারপারসনকে তার পছন্দ অনুযায়ী বিশেষায়িত হাতপাতালে চিকিৎসার দাবি জানিয়ে আসছি। কিন্তু সরকার তা আমলে নেয়নি, বরং তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে মিথ্যাচার করছেন, যা পীড়াদায়ক।

অবিলম্বে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন। একই সঙ্গে তাকে তার পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে সুযোগ দেওয়ার দাবি জানান তিনি ।

For Advertisement

750px X 80px

Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: