প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px

Call : +8801911140321

ক্যাসিনো ব্যবসায় কাউন্সিলররা জড়িত, বিব্রত নন মেয়র খোকন

কারেন্ট নিউজ বিডি   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪:৩০:৫৫

কাউন্সিলরের ক্যাসিনো ব্যবসায় জড়িত থাকায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে বিব্রত কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে সাঈদ খোকন বলেছেন, এ ধরনের কর্মকাণ্ড হতে পারে, তবে আমাদের দৃঢ়তার সাথে তা মোকাবিলা করতে হবে।এখানে বিব্রত হওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। আমরা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সাহায্য করব, সহযোগিতা করব।

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নগর ভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মেয়র।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

উল্লেখ্য, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর কে এম মমিনুল হক ওরফে সাঈদের বিরুদ্ধে ক্যাসিনো ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আমার একজন কাউন্সিলরের শৃঙ্খলাভঙ্গের ব্যাপারে আমাদের বোর্ড সভায় প্রশ্ন উঠেছে। তিনি ধারাবাহিকভাবে বোর্ড সভায় অনুপস্থিত ছিলেন, তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবার জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানিয়েছিলাম। এছাড়া বিভিন্ন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী তিনি অনুমতি ব্যতিরেকে বিদেশ ভ্রমণ করছিলেন। তাই তিনি যাতে অনুমতি ব্যতিরেকে বিদেশ ভ্রমণ করতে না পারেন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে সেটার জন্য অবহিত করা হয়েছে।

চলমান অভিযানের বিষয়ে সাঈদ খোকন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বাংলাদেশের ১৭ কোটি মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমর্থন দিচ্ছে, তার নির্দেশনা বাস্তবায়নে সব সংস্থা যেভাবে কাজ করছে সেই কাজের প্রতি সারাদেশের মানুষের সর্বাত্মক সমর্থন রয়েছে। দেশবাসী আশা করে এই অভিযানের একটা সফল পরিণতির মধ্য দিয়ে দেশ পরিচ্ছন্ন হবে, সুস্থ ধারায় ফিরে আসবে। প্রধানমন্ত্রীকে সর্বস্তরের জনগণের পক্ষ থেকে আমরা বলতে পারি- থ্যাংক ইউ পিএম, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

ঢাকা দক্ষিণের মেয়র আরও বলেন, এখানে একটি বিষয় এসেছে জনপ্রতিনিধিদের জড়িয়ে যাওয়ার বিষয়। আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে, এ কারণে আইনের কোন ব্যত্যয় হবে না। সে যে পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি হোক না কেন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা শূন্য সহিষ্ণুতা প্রদর্শন করে যাচ্ছে এবং এটা অব্যাহত থাকবে। যদি কোন কাউন্সিলর এ ব্যাপারে জড়িত থাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। মেয়র হিসেবে আমি সাহায্য সহযোগিতা করব।

অবৈধ যানবাহন বন্ধ প্রসঙ্গে সাঈদ খোকন বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন অনতিবিলম্বে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে।

ফুটপাত দখলমুক্ত প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, ফুটপাত দখলমুক্ত করার জন্য ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু করেছে। দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ইতোমধ্যে গুলিস্তান, নিউমার্কেট ও মতিঝিলে হকার উচ্ছেদের কার্যক্রম চালিয়েছে। হকার ভাইদের বলা হয়েছে অফিস সময়সূচি শেষে তারা ফুটপাতে বেচাকেনা করতে পারবে।

তিনি বলেন, তারপরেও এ নির্দেশনা লঙ্ঘন হচ্ছে। গুলিস্তান, নিউমার্কেট ও মতিঝিল এলাকার সমস্ত ফুটপাত অফিস চলাকালীন হকারমুক্ত রাখতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এবং দক্ষিণ সিটি করপোরেশন একযোগে কাজ করবে।

তিনি আরও বলেন, ঢাকার অন্য এলাকাতেও পথচারীরা যেন নির্বিঘ্নে শহরের এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ফুটপাত দিয়ে চলাচল করতে পারে, সেই ব্যবস্থা করার জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন, মেট্রোপলিটন পুলিশ ও রাজউক একযোগে ব্যবস্থা নেবে।

নির্মাণাধীন স্থাপনা প্রসঙ্গে সাঈদ খোকন বলেন, রাজধানীতে বিল্ডিং কোড মানে না, বিভিন্ন বিল্ডিংয়ে র‍্যাম্প ফুটপাতে চলে আসে, ফুটপাতে বিভিন্ন ধরনের অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে পথচারীদের পথচলায় প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করা হয়। সেই প্রতিবন্ধকতা দূর করতে অনতিবিলম্বে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করবে।

আজকের সভায় অবৈধভাবে পার্কিংয়ের বিষয়ে বিশদ আলোচনা হয়েছে। নো পার্কিং জোনগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। অন স্ট্রিট পার্কিংয়ের বিষয়ে কিছু সুপারিশ রয়েছে। আগামী সভায় এ বিষয়ে আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া বলেও জানান তিনি।

For Advertisement

750px X 80px

Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: