For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

আসাদের কারাগারে নির্মম নির্যাতনের শিকার নারীরা

কারেন্ট নিউজ বিডি   ১০ মার্চ ২০১৮, ৪:৪৩:২৭

 

সিরিয়ার বাশার আল আসাদ নিয়ন্ত্রিত কারাগারগুলোতে আটক নারীরা অমানুষিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। উপর্যুপরি ধর্ষণ ও মারধরের মতো শারীরিক নির্যাতন করা হচ্ছে তাদের।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

এসব বন্দী নারীকে মুক্ত করতে তুরস্কের প্রতি সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছেন কারাগারে এক সময় নিপীড়িত হয়ে ফিরে আসা অন্য নারীরা।

নারী দিবসকে কেন্দ্র করে তুরস্কের আদানা শাহরে আয়োজিত একটি র‌্যালিতে এ আহ্বান জানান কারাগার থেকে ফেরত আসা এক সময়কার বন্দী নারীরা।

নাম উল্লেখ না করে এক নারীকে উদ্ধৃত করে তুরস্কের সংবাদ সংস্থা আনাদুলুর একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তিনি ২০১৫ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে ছয় মাসের জন্য বাশার আল আসাদ নিয়ন্ত্রাধীন কারাগারে ছিলেন। তার ওপর অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। আসাদ সরকারের বিরোধিতা করায় অত্যাচারের পর নার্সকেও চিকিৎসা দিতে নিষেধ করা হয়।

ওই নারী বলেন, ‘তারা আটক তরুণীদেরকে ধর্ষণ করতো। তাদের ওপর কোনো প্রকার দয়া দেখানো হতো না। কিন্তু আমাদের কিছুই করার ছিল না। তারা আমাকে এবং আমার বড় বোনকে বিভিন্নভাবে অত্যাচার করেছে।’

সিরিয়ার সমাজে জেলখাটা নারীরা বিতাড়িত এবং অবহেলিত উল্লেখ করে ওই নারী আরো বলেন, ‘সিরিয়ায় একজন নারী হিসেবে এটা সবচেয়ে কঠিন বিষয়’।

গত দেড় বছর ধরে তুরস্কে শরণার্থী হিসেবে তিন সন্তানকে নিয়ে বসবাস করছেন ওই নারী।

ফিরে আসা আরেক নারী জানান, তিনি বাশার আল আসাদের পিতা হাফিজ আল আসাদের শাসনামলে নয় বছর ধরে কারাগারে বন্দী ছিলেন। সে সময়েও নারীদের ওপর অত্যাচারের কোনো সীমা ছিল না।

তিনি বলেন, ‘সেখানে অত্যাচার কখনো বন্ধ হতো না। তারা আমাকে একটি বৈদ্যুতিক চেয়ারে বসিয়ে অত্যাচার করতো। এছাড়া মাটিতে শুয়ে পড়া পর্যন্ত তারা মারতে থাকত।’

আইন বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করা এ নারীকেও সরকার বিরোধী হিসেবে বন্দি করা হয় এবং অত্যাচার করা হয়।

চার বছর ধরে তুরস্কে বাস করা আরেক নারী সেখানকার জেলের হিংস্রতা সম্পর্কে বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেছেন, ‘সেখানে প্রতিদিনই কোনো না কোনো নারীর মৃত্যু হয়। এসব জেলে অসংখ্য নারী বন্দী রয়েছে’।

কখনো সেই দিনগুলো ভুলতে পারবেন না জানিয়ে যারা এখন বন্দি রয়েছে তাদের উদ্ধারের আহ্বান জানান তিনি।

এবারের নারী দিবসে তুরস্কের আদানা শহরে র‌্যালির আয়োজন করেন। সেখানে তারা বর্তমানে বন্দী থাকা নারীদের সাহায্যের জন্য তুরস্ককে আহ্বান জানান।

এসময় সিরিয়া, চিলি, ফিলিস্তিন, ইরাক, ইংল্যান্ড, ব্রাজিল, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, কুয়েত এবং কাতারসহ প্রায় ৫০ দেশের বহু নারী এ র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন।

নারীদের উদ্ধৃত করে আনাদুলু বলছে, সিরিয়ার বাশার আল আসাদ নিয়ন্ত্রণাধীন জেলখানাগুলোতে বর্তমানে ছয় হাজার ৭০০ নারী বন্দী রয়েছেন। তাদের মধ্যে অন্তত ৪১৭ জন তরুণী।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সাল থেকে গৃহযুদ্ধ চলছে সিরিয়াতে। রাশিয়া ও ইরান সমর্থিত দেশটির শাসক বাশার আল আসাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত তথাকথিত গণতন্ত্রপন্থীরা। এতে করে প্রায় ধ্বংষ হয়ে যাওয়া দেশটিকে ‘পৃথিবীর নরক’ বলে অভিহিত করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: