প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

‘যারা গণহত্যা দিবস পালন করবে না তারা পাকিস্তানের বন্ধু’

কারেন্ট নিউজ বিডি   ২৫ মার্চ ২০১৮, ৫:৩৯:২৫

ঢাকা, ২৫ মার্চকারেন্ট নিউজ বিডিআওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যারা গণহত্যা দিবস পালন করছে না, করবে না, তারা পাকিস্তানের বন্ধু। তারা এ দেশে পাকিস্তানের স্বার্থ রক্ষাসহ সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে।

আজ রবিবার সকালে মানিক মিয়া এভিনিউয়ে রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে নতুন তিন রুটে বিআরটিসির বাস সার্ভিসের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

তিনি বলেন, এ দেশে কারা, কোনো শক্তি সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে সেটা মানুষ জানে। মানুষ তাদের পাকিস্তানের বন্ধুই ভাবে। কারণ পাকিস্তান গণহত্যা দিবসে বিশ্বাস করে না, আজও তারা ক্ষমা চায়নি।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য এরশাদের মতো স্বৈরাচারের দল জাতীয় পার্টি অনুমতি চাওয়া মাত্র অনুমতি দিলেন, কিন্তু বিএনপিকে দেয়া হচ্ছে না কেন- এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের দৃষ্টিভঙ্গি জানতে চাইলে তিনি বলেন, পারমিশনের ব্যাপারে তো তেমন কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। কারণ তারা তো বৈধ রাজনৈতিক দল। এসব নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করে লাভ নেই। যাকে স্বৈরাচার বলি সেই এরশাদ ক্ষমতা ছাড়ার পরও ৫টি আসনেই জিতেছিলেন। বৈধ রাজনৈতিক দল হিসেবে তাদের সভা-সমাবেশ তো নতুন কিছু নয়। সোহরাওয়ার্দীতে করলেই ভিন্ন কিছু চিন্তার কারণ নেই। হোয়াট মেকস এ ডিফারেন্স? আমার তো বুঝে আসছে না’।

‘স্বৈরশাসক চাওয়া মাত্র অনুমতি পেয়ে সমাবেশ করতে পারল। আওয়ামী লীগের খারাপ লেগেছে কিনা? জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ দেশে আরও অনেক খারাপ লাগার বিষয় আছে। সেগুলো তো আমরা হজম করে আসছি।

জার্মানভিত্তিক একটি গবেষণা সংস্থার বরাতে বাংলাদেশকে স্বৈরতান্ত্রিক দেশ হিসেবে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে বিবিসি যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সে সম্পর্কে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ ব্যাপারে আমাদের দল থেকে স্পষ্ট করে অবস্থান জানানো হয়েছে। এর পরও কেন বিষয়টি আলোচনায় আসছে?

তিনি বলেন, আমি একটি কথাই বলব, যে মুহূর্তে জাতিসংঘ বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে হিসেবে ঘোষণা করেছে, আমরা উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে প্রাথমিক ধাপ অতিক্রম করছি, ঠিক সেই মুহূর্তে এ রিপোর্টটা কেন’?

এ সময় মন্ত্রী উত্তরায় সার্কুলার বাস, সদরঘাট থেকে ঢাকার দিকে ৩টি বাস এবং খিলক্ষেত থেকে মতিঝিলে অফিস যাত্রীসেবা বাসের উদ্বোধন করেন।

মন্ত্রী বিআরটিসির গাড়ি বহর বৃদ্ধির খবর জানিয়ে বলেন, ইন্ডিয়ান লাইন অব ক্রেডিটে ৫শ’ ট্রাক, ২শ’ ডাবল ডেকার, ১শ’ নন এসি বাসের অচিরেই টেন্ডার হবে। অক্টোবরের মধ্যেই এসব বাস রাস্তায় নামবে বলে আশা প্রকাশ করেন মন্ত্রী।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ডিপোতে পরিত্যক্ত অবস্থা থেকে ১২০টি গাড়ি মেরামত করে চালু করা হয়েছে।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: