প্রচ্ছদ / ময়মনসিংহ / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

বিক্ষুব্ধ সনাতন ধর্মাবলম্বীরা প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান

কারেন্ট নিউজ বিডি   ৩ এপ্রিল ২০১৮, ৫:১০:০৫

ঢাকা, ০৩ এপ্রিলকারেন্ট নিউজ বিডিজামালপুর শহরের নগর স্থাপত্যের পুণঃসংস্কার ও কালচারাল ভিলেজ প্রকল্প নির্মাণে সোয়া ৩শ’ বছরের সুপ্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী দয়াময়ী মন্দির ও রাধামোহন জিউ মন্দিরের ভূমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়ায় বিক্ষুব্ধ সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মন্দির কমিটির ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়েছে, বাংলার নবাব মুর্শিদকুলি খাঁর শাসনামলে ১১০৪ বঙ্গাব্দে দয়াময়ী মন্দির প্রতিষ্ঠা করা হয়। দিনাজপুরের ইতিহাস প্রসিদ্ধ কান্তজীর মন্দির ও পাবনার জোড় বাংলার মন্দিরের মতো জামালপুরের দয়াময়ী মন্দিরটিও জাগ্রত মন্দিররূপে সোয়া ৩শ’ বছর ধরে ভক্তদের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। জামালপুর শহরের নগর স্থাপত্যের পুণঃসংস্কার ও কালচারাল ভিলেজ প্রকল্প নির্মাণে দু’টি মন্দিরের পুরোহিত কর্মচারীদের বাসস্থান ও বাণিজ্যিক ভবনের সাড়ে ১৩ শতাংশ ভূমি অধিগ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয় স্থানীয় জেলা প্রশাসন।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

ক্ষুব্ধ সনাতন ধর্মাবলম্বীরা বলেন, যে ১৩ শতাংশ জমি অধিগ্রহনের কথা বলা হয়েছে সেখানে মন্দিরের পুরোহিতদের আবাসস্থল ও মন্দিরের মার্কেট রয়েছে। তাহলে পুরোহিতরা থাকবে কোথায়? মার্কেটের ভাড়া বাবদ প্রাপ্ত আয় থেকে মন্দিরের ব্যয় নির্বাহ করা হয় । এমনটা হলে মন্দির পরিচালনার খরচ কোথা থেকে আসবে ? দয়াময়ী মন্দিরের দর্শনার্থীরা মন্দির দর্শনে এসে দয়াময়ি মাঠে জমায়েত হত এখন কোথায় হবে? গরমের দিন আসতে যাচ্ছে সাথে জলের সংকট মন্দির কর্মচারি ও আশেপাশের প্রায় ২০০০ লোক এখানে প্রতিদিন স্নান করত। পুকুরটাও ভরাট করা হয়েছে।মন্দিরে সিংহদ্বারের সামনে  দেয়াল তোলা হবে। ঢাকা পরে যাবে ঐতিহ্য ।

ইতিপূর্বেও মন্দির কমিটি এই জমি অধিগ্রহণ এবং বাণিজ্যিক ভবন না ভাঙ্গার দাবি জানান। কিন্তু মন্দির কমিটির কর্মকর্তাদের দাবি উপেক্ষা করে জেলা প্রশাসন ভূমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখে। এতে ক্ষুব্দ হয়ে উঠে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। তারা ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের পাশাপাশি স্থাপত্যকলার কীর্তিরূপে সোয়া ৩শ’ বছরের ঐতিহ্যবাহী দয়াময়ী মন্দিরের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী ও সংবাদ সম্মেলনের পাশাপাশি আইনী লড়াইয়ের উদ্যোগ নেয়।

সংবাদ সম্মেলনে দয়াময়ী মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি গোপাল সাহা, শ্রী শ্রী রীঁ রাধামোহন জিউ মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি বীরেন চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সিদ্ধার্থ শংকর রায় সহ মন্দিরের পুরোহীত ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকেরা সংবাদ সন্মেলনেে উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা আরও বলেন, জেলা প্রশাসন ভূমি অধিগ্রহণ বন্ধের উদ্যোগ যদি না নেয়, তা হলে বৃহত্তর কর্মসূচীসহ আইনী লড়াইয়ে নামবেন তারা। এর আগে দয়াময়ী চত্বরে বিশাল এক মানববন্ধন কর্মসূচীতে সনাতন ধর্মের শত শত নারী পুরুষ অংশ নেয়। বক্তারা এই বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: