For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

‘সৌদি আরবে নির্যাতনে কর্মক্ষেত্র ছেড়ে পালাচ্ছেন বাংলাদেশি নারী গৃহকর্মীরা’

কারেন্ট নিউজ বিডি   ৩ এপ্রিল ২০১৮, ৫:৩৫:৪১

ফাইল ছবি

ঢাকা, ০৩ এপ্রিলকারেন্ট নিউজ বিডিসৌদি আরবে মালিকের নির্যাতনে কর্মক্ষেত্র ছেড়ে পালাচ্ছেন বহু বাংলাদেশি নারী গৃহকর্মী। পালিয়ে আসা এসব গৃহকর্মীদের জন্য ‘সেফ হাউস’ বা আশ্রয় কেন্দ্র খুলতে বাধ্য হয়েছেন বাংলাদেশের কূটনীতিকরা।

সৌদি আরবস্থ বাংলাদেশ দূতবাসের ফাঁস হওয়া এক নথিতে এসব তথ্য পাওয়া গেছে বলে দাবি করেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট আই।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

শনিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিয়োগকারীদের মাধ্যমে যৌন ও শারীরিকভাবে নিপীড়নের শিকার হয়ে শত শত নারী কাজ ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। কূটনীতিকরা ওই নথিতে বলেছেন, আমাদের কাছে আসা গৃহকর্মীরা অসুস্থ এবং নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হয়ে সেফ হাউসে আশ্রয় খুঁজছে। ২০১৫ সালে লেখা ওই মেমো’তে বলা হয়েছে, প্রতিদিন গড়ে তিন থেকে চার জন নারী গৃহকর্মী আশ্রয় নিতে আসছে। এ অবস্থায় কূটনীতিকদের গৃহকর্মীদের সহায়তায় একজন নারী কাউন্সেলর নিয়োগ দেওয়ার আহ্বান জানান। বেশির ভাগ নারী কর্মীর কাছেই পাসপোর্ট নেই। কারণ এখানে আসার নিয়োগ কর্তারা তাদের পাসপোর্ট ছিনিয়ে নেন। যাতে করে তারা সৌদি আরব ছেড়ে যেতে না পারে। দূতাবাস কর্মকর্তারা আশ্রয় কেন্দ্রে আরও আসন বৃদ্ধি ও সিসিটিভি-সিস্টেম পাঠানোর অনুরোধ করেন। আশ্রয় প্রার্থীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় সৌদিতে এ ধরনের আশ্রয় কেন্দ্র করার আহ্বান জানানো হয়। ২০১৭ সালের তথ্য অনুযায়ী, জেদ্দা এবং রিয়াদে অন্তত ২৫০ জন নারী আশ্রয় কেন্দ্রে ছিলেন।

গত চার বছরে সৌদি আরবে নারী গৃহকর্মী যাওয়ার সংখ্যা নাটকীয়ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০০৮ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ৭ বছরে ৫ হাজারের কিছু বেশি নারী সৌদি গিয়েছিলেন। এরপর ২০১৫ সালে যান ২১ হাজার জন, ২০১৬-তে ৬৮ হাজার, ২০১৭-তে ৮৩ হাজার। আর চলতি বছরের প্রথম দুই মাসে গেছেন ১৬ হাজারের বেশি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ বিষয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্তব্য চাওয়া হলেও তা প্রতিবেদন প্রকাশের আগ পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: