প্রচ্ছদ / খুলনা / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

কারেন্ট নিউজ বিডি   ৬ এপ্রিল ২০১৮, ৪:৩৭:০৬

ঢাকা, ০৬ এপ্রিলকারেন্ট নিউজ বিডি : মাগুরা মহম্মদপুর উপজেলার আড়মাঝি গ্রামে আড়মাঝি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আবু জাফর মোল্যা নামে এক সহকারী শিক্ষক এর বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে ।

বৃহস্পতিবার (০৫ এপ্রিল) এ ঘটনায় শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয়রা ওই স্কুল শিক্ষকের অপসারনের দাবিতে স্কুলে বিক্ষোভ করে । তবে অভিযুক্ত ওই শিক্ষক সাংবাদিকদের উপস্থিতি দেখে কোন কথা না বলে পালিয়ে যান।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

মহম্মদপুর থানা  পুলিশ বিক্ষোভ কারীদের শান্ত করে, তাদের নিকট থেকে লিখিত অভিযোগ গ্রহণ করে স্কুল কর্তৃপক্ষ । ওই শিক্ষককে অন্য স্কুলে বদলি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে শিক্ষা বিভাগ।  তবে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য এবং ভিন্ন খাতে নেয়ার চেষ্টা করছেন  স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী মহল।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ওই স্কুলের শিক্ষক আবু জাফর মোল্লা বিভিন্ন সময় স্কুল ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করে আসছিল। লোকলজ্জার ভয়ে ওই সব ছাত্রীদের অভিভাবকরা বিষয়টি চেপে যেতেন। সম্প্রতি এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করলে বিষয়টি প্রকাশ পায়। একে একে বেরিয়ে আসতে থাকে স্কুল শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকান্ডের কথা।

পঞ্চম শ্রেণির কয়েকজন ছাত্রীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, শিক্ষক আবু জাফর মোল্লা  প্রায়ই তাদের (ছাত্রীদের) জড়িয়ে ধরে শরীরের বিভিন্ন গোপনীয় জায়গায় হাত দেয়। এছাড়া পাঠদানকালে ছাত্রদের ক্লাস থেকে বের করে দিয়ে অনেকদিন ধরে ছাত্রীদের খারাপ ছবি দেখান ও ফোনের মাধ্যমে অশ্লিল ভিডিও দেখান। তারা স্যারের ভয়ে বিষয়টি কাউকে বলতে সাহস পায় না। ওই বিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্রীকে তিনি এ ভাবে যৌন হয়রানী করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

নায়েব আলী নামে জনৈক অভিভাবক  জানান, ছাত্রীরা স্কুলে গেলে শিক্ষক আবু জাফর  তাদের শরীরের স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয়। ছাত্রীরা ভয়ে এতদিন কাউকে কিছু না বললেও এখন ঘটনা প্রকাশ পেয়েছে। আমরা ওই দুশ্চরিত্র শিক্ষকের বিচার চাই।

প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি শুনেছি এবং শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করেছি   তবে ঘটনার সত্যতা মিললে তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

তবে অভিযোগের ব্যাপারে আবু জাফর মোল্যার  সাথে কথা বলতে স্কুলে গেলে তিনি সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে  স্কুল থেকে পালিয়ে যান।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো: রেজাউল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনৈতিক অভিযোগের বিষয়টি জেনেছি এবং শিক্ষা অফিসারকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: মোশাররফ হোসেন বলেন,   আমি অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছি এবং ওই স্কুল পরিদর্শন করেছি।  ওই স্কুলে গিয়ে ছাত্রীদের সাক্ষাতকার নিয়ে এসেছি। আপাতত তাকে  ওই স্কুল থেকে সরিয়ে মৈফুলকান্দি স্কুলে পাঠদানের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের তদন্ত করে বিভাগীয় পর্যায়ে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

মহম্মদপুর থানার ওসি মো: তরিকুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি শুনেছি তবে লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: