প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

এশিয়া কাপ- ২০১৮

শিরোপা অধরাই রইলো বাংলাদেশের

কারেন্ট নিউজ বিডি   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪:৪৩:২৩

ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর, কারেন্ট নিউজ বিডি : এশিয়া কাপের ফাইনালে ৩ উইকেটে বাংলাদেশ হারিয়ে শিরোপা জিতে নিয়েছে ভারত। ২২৩ রানের সহজ লক্ষে পৌছাতে ভারতকে খেলতে হয়েছে ম্যাচের শেষ বলটা। আর ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার ফের তীরে গিয়ে তরী ডুবলো টাইগারদের। ক্রিকেটে আন্তর্জাতিক ট্রফি বাংলাদেশের কাছে অধরাই রয়ে গেল।

লিটন দাসের ক্যারিয়ার সেরা ব্যাটিংয়েও স্কোর বোর্ডে যথেষ্ট রান তুলতে পারল না বাংলাদেশ। ২২২ রানের পুঁজি নিয়ে লড়াই করলেন বোলাররা কিন্তু তাতে হার এড়ানো সম্ভব হলো না। শেষ বলে জিতে এশিয়া কাপের শিরোপা জিতে নিল ভারত। লিটন দাস পেয়েছেন ম্যান অব দ্য মাচের পুরস্কার।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

স্কোর: ভারত: ৫০ ওভারে ২২৩/৭ (রোহিত ৪৮, ধাওয়ান ১৫, রাইডু ২, কার্তিক ৩৭, ধোনি ৩৬, কেদার ২৩*, জাদেজা ২৩, ভুবনেশ্বর ২১, কুলদীপ ৫*; মিরাজ ০/২৭, মুস্তাফিজ ২/৩৮, নাজমুল ১/৫৬, মাশরাফি ১/৩৫, রুবেল ২/২৬, মাহমুদউল্লাহ ১/৩৩)

বাংলাদেশ: ৪৮.৩ ওভারে ২২২ (লিটন ১২১, মিরাজ ৩২, ইমরুল ২, মুশফিক ৫, মিঠুন ২, মাহমুদউল্লাহ ৪, সৌম্য ৩৩, মাশরাফি ৭, নাজমুল ৭, মুস্তাফিজ ২*, রুবেল ০; ভুবনেশ্বর ০/৩৩, বুমরাহ ১/৩৯, চেহেল ১/৩১, কুলদীপ ৩/৪৫, জাদেজা ০/৩১, কেদার ২/৪১)

ফল: ভারত ৩ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: লিটন দাস

এশিয়া কাপের ফাইনালে শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় ভারতের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ।

টসে জিতে বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে পাঠায় ভারত। তামিম-সাকিবের অনুপস্থিতিতে এদিন দায়িত্বশীল ব্যাটিং করতে পারেননি মুশফিক-রিয়াদ। লিটন দাস ও প্রথমেবারের মতো ওপেনিংয়ে নামা মেহেদী হাসান মিরাজের দৃঢ়তায় উদ্বোধনী জুটিতে ১২০ রান সংগ্রহ ভারতকে বাংলাদেশ চিন্তায় ফেলে দিলেও শেষ হাসি হাসলো টিম-ইন্ডিয়া। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ধারাবাহিক ব্যর্থতায় ৪৮.৩ ওভারে ২২২ রানে অল আউট হয়ে যায় বাংলাদেশ।

ব্যাটিংয়ে নেম ভারত শুরুতে সুবিধা করতে পারেন নি। পঞ্চম ওভারে টিম ইন্ডিয়ার উদ্বোধনী জুট ভাঙে নাজমুল। তার অফ স্টাম্পের বাইরে ফেলা মিড অফের ওপর দিয়ে পাঠাতে গিয়ে ধাওয়ান ধরা পড়েন সৌম্য সরকারের হাতে। ১৪ বলে তিন চারে ১৫ রান করে ফিরেন ধাওয়ান।

বোলিংয়ে এসেই উইকেট লাভ করেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আম্বাতি রায়ডুকে মুশফিকের কট বানিয়ে উইকেটটি পান তিনি। ভারত দলীয় ৪৬ রানে ২ উইকেট হারায়।

রুবেল নেন ভারত অধিনায়কের দামী উইকেট। ডিপ স্কয়ার ও ডিপ ফাইন লেগের মাঝে ত্রিশ গজের ব্যবধান ছিল। গ্যাপে খেলতে পারেননি রোহিত। কিছুটা দৌড়ে চমৎকার এক ক্যাচ নেন নাজমুল ইসলাম। ৫৫ বলে তিনটি করে ছক্কা-চারে ৪৮ রান করে ফিরেন রোহিত।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে মাহেন্দ্র সিং ধোনি ও দিনেশ কার্তিকের ৫৪ রানের পার্টনারশিপ ভেঙে দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৩১তম ওভারে রিয়াদের বলে এলবি হয়ে ফেরেন ৩৭ রান করা কার্তিক। ১৩৭ রানে ৪ উইকেট হারায় ভারত।

নিজের প্রথম ওভারে এসেই শিখর ধাওয়ানকে তুলে নেন স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। পঞ্চম ওভারে ও দলীয় ৩৫ রানে সৌম্য সরকারের ক্যাচ বানিয়ে ধাওয়ানকে ফিরিয়ে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম উইকেট লাভ করেন অপু।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে মাহেন্দ্র সিং ধোনি ও দিনেশ কার্তিকের ৫৪ রানের পার্টনারশিপ ভাঙেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৩১তম ওভারে রিয়াদের বলে এলবি হয়ে ফেরেন ৩৭ রান করা কার্তিক। ১৩৭ রানে ৪ উইকেট হারায় ভারত।

নিজের শেষ ওভারের প্রথম বলে আঘাত হানলেন মুস্তাফিজুর রহমান। ফিরিয়ে দিলেন ভারতকে এগিয়ে নেওয়া ভুবনেশ্বর কুমারকে। অ্যাঙ্গেলে বেরিয়ে যাওয়া বল ড্রাইভ করতে গিয়ে মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসবন্দি হন ভুবনেশ্বর। ৩১ বলে একটি করে ছক্কা-চারে ফিরেন ২১ রান করে।

শেষপর্যন্ত ভারতকে জয়ের জন্য শেষ বল পর্যন্ত করতে হয়।

এর আগে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের অভিষেক সেঞ্চুরি করে ফেরন লিটন দাশ। ১১৭ বলে ১২টি চার ও ২টি ছক্কায় ১২১ রান করেন লিটন। টাইগাররা শুরুটা দারুণ করলেও ধীরে ধীরে ম্যাচে ফেরে ভারত। ব্যক্তিগত ৪ রানে ও দলীয় ১৫১ রানে কুলদিপ যাদবে দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তুলে মারতে গিয়ে বাউন্ডারি লাইনে থাকা জসপ্রিত বুমরাহ’র ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। বাংলাদেশ হারায় পঞ্চম উইকেট।

বাংলাদেশের চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে নামা মুশফিকুর রহিমকে বিদায়ে করে তৃতীয় উইকেট তুলে নেয় ভারত। দলীয় ১৩৭ রানে তিনি কেদার যাদবে বলে ব্যক্তিগত ৫ রানে জসপ্রিত বুমরাহ’র ক্যাচে পরিণত হন। পরে রান আউটের শিকার হয়ে ফিরে যান মোহাম্মদ মিঠুন।

ওয়ানডে ক্যারিয়ারের অভিষেক সেঞ্চুরি তুলে নেন লিটন দাশ। ৮৭ বলে ১১টি চার ও ২টি ছক্কায় ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি উদযাপন করেন তিনি।

লিটন দাশের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে দারুণ খেলে মেহেদি হাসান মিরাজের বিদায়ে পর উইকেটে এসে থিতু হতে পারেননি ইমরুল কায়েস। ওয়ান ডাউনে নামা এ বাঁহাতি ব্যক্তিগত ২ রানে যুজভেন্দ্র চাহালের বলে এলবির ফাঁদে পড়েন।

উদ্বোধনী উইকেটে এদিন ভারতের বিপক্ষে লিটন দাশকে নিয়ে রেকর্ড জুটি গড়ে ফেরেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ২০.৫ ওভারে তাদের জুটিতে ১২০ রান আসে। দলীয় ১২০ রানের কেদার যাদবে বলে আম্বাতি রায়ডুর কাছে ক্যাচ তুলে বিদায় নেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ৫৯ বলে ৩টি চারের সাহায্যে ৩২ রান করেন মিরাজ। শেষ উইকেট হিসেবে জসপ্রিত বুমরাহ’র বলে বোল্ড হন রুবেল হোসেন। দলীয় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৩ করে রান আউট হন সৌম্য সরকার। রান আউট হন নাজমুল ইসলাম অপুও।

তবে ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরি লিটন দাশের আউটটি বিতর্কিত। কুলদিপ যাদবের বলে মাহেন্দ্র সিং ধোনির স্ট্যাম্পিংটা বিতর্কের সৃষ্টি করে।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: