প্রচ্ছদ / স্বাস্থ্য / বিস্তারিত

আর্থ্রাইটিসের ব্যথা থেকে মুক্তির উপায়

২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬:৪১:৫১

ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর, কারেন্ট নিউজ বিডি : আর্থ্রাইটিস হলো হাত বা পায়ের হাড়ের সংযোগস্থলের একরকম প্রদাহ, যা হাত ও পায়ের হাড়ের সংযোগস্থলে ব্যথা বাড়ায় ও হাত ও পাকে শক্ত, স্টিফ করে দেয়। আর্থ্রাইটিস থেকে মুক্তির জন্য আপনার ডায়েটে জাস্ট কয়েকটা জিনিস অ্যাড করুন। তবে আর্থ্রাইটিস থেকে পার্মানেন্টলি মুক্তির জন্য আপনাকে নিয়ম করে সেই জিনিসগুলো খেয়েই যেতে হবে। ডাক্তাররা যেসব ওষুধ দেন আর্থ্রাইটিসের জন্য, সেগুলো অধিকাংশ সময়েই পেনকিলার হয়, যার নানারকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে। তাই ওষুধ অ্যাভয়েড করুন ও ডায়েট বদলান।

গোলমরিচ : অতি প্রাচীনকাল থেকেই কিন্তু গোলমরিচ আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় ব্যথার ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। গোলমরিচে প্রচুর পরিমাণে ক্যাপসাইসিন থাকে, যা আর্থ্রাইটিসের মারাত্মক ব্যথা থেকে আপনাকে সহজে মুক্তি দিতে পারে। তাই আপনার ডায়েটে আপনি গোলমরিচ যোগ করে দেখতেই পারেন।

দারুচিনি : আর্থ্রাইটিসের হাত থেকে সহজে মুক্তি পাওয়ার জন্য দারুচিনি কিন্তু আপনার বন্ধু হয়ে উঠতে পারে। দারুচিনির অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি গুণ আর্থ্রাইটিসের ব্যথা থেকে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে। তবে বেশি মাত্রায় দারুচিনি খেলে তা কিন্তু শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়ায়।

হলুদ : আর্থ্রাইটিস রোগীদের জন্য হলুদ কিন্তু খুবই উপকারী। হলুদে থাকা কারকিউমিন প্রদাহ দূর করে ও ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। রোজ সকালে উঠে কাঁচা হলুদ নিয়ম করে যদি খেতে পারেন তাহলে আর্থ্রাইটিসের ব্যথার সহজে উপকার পেতে পারেন।

গ্রিন টি: গ্রিন টিতে থাকা পলিফেনল অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান হিসেবে কাজ করে। এ ছাড়া গ্রিন টি হাড়ের সংযোগস্থলকেও রক্ষা করতে সাহায্য করে। গ্রিন টি হাড়ের প্রদাহকে দূর করে। তাই রোজ নিয়ম করে এক কাপ চা খান। দেখবেন ব্যথা খানিক নিয়ন্ত্রণে থাকছে। এ ছাড়া আদা ও রসুনেরও অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি গুণ থাকায় তা আর্থ্রাইটিসের ব্যথা ও প্রদাহকে খানিক কমাতে সাহায্য করে। আর দেখবেন আপনার ডায়েটে যেন প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। ভিটামিন সি হাড়ের সংযোগস্থলের কোলাজেন উৎপাদন বাড়ায় ফলে হাড়ের ক্ষয় কম হয় আর আর্থ্রাইটিসের সম্ভাবনা কমে। বিভিন্ন রিসার্চ থেকে জানা গেছে, নানারকম ভেষজ উদ্ভিদের গন্ধ কিন্তু আপনাকে আর্থ্রাইটিসের ব্যথা থেকে খানিক আরাম দিতে পারে। যেমন- ল্যাভেন্ডারের গন্ধ আপনার স্ট্রেসের জন্য দায়ী করটিসলের মাত্রা কমায় ও ব্যথার বোধের থেকে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে।

হাত-পায়ের ব্যায়াম: আর্থ্রাইটিসের ব্যথা আপনার হাত-পা-কে স্টিফ করে দিতে পারে। তাই বসে না থেকে টুকটাক কাজ করুন। ব্যথা লাগলেও জোর করে করার চেষ্টা করুন। নিজের কাজ নিজেই করুন। আর রান্নাঘরের কাজকর্ম কাজের মাসির হাতে না ছেড়ে নিজে করার চেষ্টা করুন। বাসন পরিষ্কার করা বা ধোয়ার মতো কাজ কিন্তু আপনার হাতের যথেষ্ট পরিশ্রম করায়। ফলে হাতের স্টিফনেস খানিক কমেও আর হালকা ব্যায়ামও হয়ে যায়। ডাক্তার দেখিয়ে তার পরামর্শ অনুযায়ী অল্প কিছু ফ্রি-হ্যান্ড এক্সারসাইজ নিয়ম করে করুন রোজ অন্তত আধ ঘণ্টা করে। এ ছাড়া নিয়ম করে হাঁটাহাঁটিও করুন।

হট অ্যান্ড কোল্ড ট্রিটমেন্ট: এটি করার জন্য আপনার দুটি পাত্র লাগবে। একটি পাত্রে পানি দিয়ে তাতে বরফের কিউব দিন। ও আরেকটি পাত্রে গরম পানি দিন। এবার অল্টারনেট করে আপনার ব্যথার জায়গায় এক মিনিট মতো করে দিয়ে যান। এই হট অ্যান্ড কোল্ড ট্রিটমেন্ট যদি নিয়ম করে রোজ করতে পারেন তা হলে উপকার পাবেনই।

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: