প্রচ্ছদ / রংপুর / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

প্রতিবাদী ৫ ছাত্রকে ন্যাড়া করা সেই চেয়ারম্যান আটক

কারেন্ট নিউজ বিডি   ৫ অক্টোবর ২০১৮, ২:৩১:০৫

ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করে মাথা ন্যাড়ার শিকার হলেন ৫ স্কুলছাত্র। ‘অপরাধ’ না করলেও ক্লাসে ডেকে নিয়ে শালিস-বৈঠকের মাধ্যমে পাঁচ ছাত্রকে মাথা ন্যাড়া করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় প্রধানশিক্ষক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বারকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৪ অক্টোবর) সকালে রুহিয়া থানা পুলিশ তাকে আটক করেছে। আব্দুল জব্বার সদর উপজেলার আখানগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও রুহিয়া থানা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ব্যারিস্টার জমির উদ্দীন সরকার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক। তার বিরুদ্ধে রুহিয়া থানায় নাশকতার মামলাও রয়েছে বলেও জানান থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায়।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

ওসি আরও জানান, সদর উপজেলার ভেলারহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্র রুবেল রানা, মো. সবুজ, সারোয়ার, আসিফ ও আশরাফুল গেল শনিবার প্রাইভেট শেষ করে বাড়িতে ফিরছিল। পথে ব্যারিস্টার জমির উদ্দীন সরকার উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে পথরোধ করে জোরপূর্বক গোলাপ ফুল দেয়ার চেষ্টা করছিল সদর উপজেলার রুহিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের মোন্নাপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মো. লিটন। এটি দেখে ওই পাঁচ শিক্ষার্থী এর প্রতিবাদ করে। পরে লিটন সেখান থেকে চলে যায়।

পরদিন রোববার দুপুরে ব্যারিস্টার জমির উদ্দীন সরকার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক আব্দুল জব্বার ওই পাঁচজন ছাত্রকে তার বিদ্যালয়ে ডেকে নেন। এরপর বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে স্থানীয় মাতব্বরদের নিয়ে শালিস-বৈঠক বসান। বৈঠকে লিটনের বিচার না করে উল্টো ওই পাঁচজন ছাত্রকে অপরাধী সাব্যস্ত করে প্রধানশিক্ষক আব্দুল জব্বার মারপিট করেন এবং স্থানীয় এক নাপিতকে ডেকে এনে পাঁচজন ছাত্রকে মাথা ন্যাড়া করে দেন।

বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ ও গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ প্রধানশিক্ষক জব্বারকে আটক করে।

ওসি বলেন, জব্বারকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: