জবি’র যৌন নিপীড়ক দুই ছাত্র বহিস্কার

৯ অক্টোবর ২০১৮, ১:৪৮:১১

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের(জবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ‘ইউনিট-২’ (মানবিক শাখা)-এর ভর্তি পরীক্ষায় এক নারী পরীক্ষার্থীকে উত্ত্যক্ত্ করার অভিযোগে ২ ছাত্রকে বহিস্কার করেছে প্রশাসন। বহিস্কৃতরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ২য় সেমিস্টারের ছাত্র জয়নুল আবেদীন ও একই বিভাগের মোবারক ঠাকুর প্রিন্স।

সোমবার (৮অক্টোবর)  বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড.মোস্তফা কামাল এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আমাদের প্রাথমিক তদন্ত শেষে উপাচার্য স্যার তাদেরকে বহিস্তারের নির্দেশ দিয়েছেন। এরপরে আমাদের শৃঙ্গলা কমিটির তদন্ত শেষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেয়া হবে।

এর আগে শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এমন ঘটনা ঘটে। অভিযোগ পত্র দিয়ে ওই নারী শিক্ষার্থী জানান আমি পরীক্ষা শেষে বিজ্ঞান অনুষদের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলাম। এসময় ওরা দুজন আমাকে ডেকে নিয়ে যৌন হয়রানীমুলক আচরণ করে। আমার শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গাকে আঙ্গুল দিয়ে ইশারা করে নানা ধরণে কুরুচিমুলক মন্তব্য করেন। এতে আমি একজন নারী হিসেবে বেশ বিব্রতকর অবস্থায় পরে যাই। তিনি আরো জানান, শুধু অশালীন মন্তব্য করেই থেমে জাননি তারা। বরং আমি ওরনা পরিধান না করারও কারণ জানতে চায় এবং তারা মানিব্যাগ থেকে আমাকে ওরনা কেনার টাকা দিতে চায়। এসময় তারা আমার সাথে সর্বোচ্চ রকম অশালীন কথাবার্তা বলেন।

এ বিষয়ে ওই নারী শিক্ষার্থীর অভিভাবক তারই বড়বোন জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাংবাদিকদের বলেন, এমন আচরণ একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য চরম হতাশাজনক। আজ এ দিনেও যখন নারীরা স্বাধীনভাবে চলাচলের অধিকার রাখে না, এটা মেনে নেওয়া কষ্ট সাধ্য। আমি চাই আমার বোনের মত কারো সাথে এমন আচরণ করা না হোক। আমাদের চলাচলের নূন্যতম স্বাধীনতাটুকু নিশ্চিত হওয়াই আমাদের দাবী।

অভিযুক্তদের পুলিশের হেফাযতে নেওয়ার বিষয়ে কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মশিউর রহমান বলেন, তাদেরকে প্রাথমিক ভাবে হেফাজতে নেয়া হয়েছিল। পরে মামলা না হওয়ায় আমরা তাদেরকে ছেড়ে দিয়েছিলাম।

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: