প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

ঐতিহাসিক রায়ে জাতি কলঙ্কমুক্ত হয়েছে: তোফায়েল

কারেন্ট নিউজ বিডি   ১০ অক্টোবর ২০১৮, ৮:২৯:৩২

ফাইল ছবি

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার নিয়ে জাতির একটা কলঙ্ক ছিল। সে কলঙ্কমুক্ত হয়েছে। গ্রেনেড হামলার আরও একটা কলঙ্ক ছিল আজকে সঠিক রায়ের মাধ্যমে সেটি থেকেও আমরা মুক্তি লাভ করলাম। এজন্য জাতি অত্যন্ত আনন্দিত এবং খুশি।’

আদালতে রায় ঘোষণার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘১৪ বছর পরে আজকে রায়টি হলো এটি একটি ঐতিহাসিক রায়। কারণ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যেই একটা পরিকল্পিতভাবে ২১ আগস্ট হামলা সংঘটিত হয়েছিল। রায়ের মধ্যে বিস্তারিত আছে কীভাবে কোথা থেকে গ্রেনেড আনা হয়েছিল। কোথায় মিটিং করে এ পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছিল সবই আছে।’

তিনি বলেন, বিচার স্বচ্ছ হয়েছে। এ রায় যে কোনো ধরনের প্রভাবান্বিত না, যেটা যাদের ফাঁসি হলো, আর যাদের হলো না সেটা বিচার বিশ্লেষণ করলে বুঝা যায়। কোনো উদ্দেশ্যে নিয়ে এ মামলাটা পরিচালনা করা হয়নি। একটা ন্যায় বিচারের জন্য মামলা পরিচালনা করা হয়েছে। আমি মনে করি যে যুগান্তকারী এবং একটা ঐতিহাসিক রায় হয়েছে। গ্রেনেড হামলার বিচার হওয়ায় জনগণ সন্তোষ প্রকাশ করছেন। কারণ আজকে জাতি কলঙ্কমুক্ত হয়েছে।

রায় বাস্তবায়ন বিষয়ে তিনি বলেন, যাদের ফাঁসি বা যাবজ্জীবন হয়েছে তারা নিশ্চয় উচ্চ আদালতে যাবেন। সেখানে ন্যায় বিচার পাবেন এবং বিচার যেভাবে চলে সেভাবেই চলবে। এক্ষেত্রে প্রভাবন্বিত করার কিছু নেই। আমাদের তাড়াহুড়া করারও কিছু নেই। আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে।

এর আগে ঢাকার ১নং অস্থায়ী দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে ১৪ বছর আগে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার ঘটনায় মতিঝিল থানায় করা হত্যা মামলায় রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। এছাড়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনের আদেশ দেয়া হয়।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: