প্রচ্ছদ / চট্টগ্রাম / বিস্তারিত

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

বন্ধ নেই ইলিশ ধরা, বোরকা পরে বিক্রি

কারেন্ট নিউজ বিডি   ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ১২:৪৯:৩৬

মুন্সীগঞ্জ জেলার বিভিন্ন বাজারে ইলিশের দেখা না মিললেও গ্রামাঞ্চলে বাড়িতে বসেই কেনা যাচ্ছে ইলিশ । বস্তায় করে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ইলিশ বিক্রি করছেন অনেক বিক্রেতারা। সুধু তাই নয় বোরকা পরে নারীরাও বিক্রি করছেন এসব মা ইলিশ।

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের অন্ধকারে জেলেরা মা ইলিশ ধরছে। প্রকাশ্য বাজারে বিক্রি করতে না পারায় খুবই সস্তায় সাধারণ ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করছে এই ইলিশ।

For Advertisement

750px X 80px
Call : +8801911140321

স্থানীয়রা জানান, পদ্মা ও মেঘনা নদীতে ইলিশ ধরা রীতিমত উৎসবে পরিণত হয়েছে। আর নদীর তীরেই বসছে ইলিশের হাট। সেখানে ইলিশ কেনাবেচার ধুম পড়েছে। ১০০-১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে এক কেজি ইলিশ।

এছাড়া মেঘনা ও পদ্মা তীরবর্তী এলাকায় নানা কৌশলে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে ইলিশ। মুন্সীগঞ্জের পদ্মানদী বেষ্টিত লৌহজং উপজেলার উত্তর হলদিয়া গ্রামে বস্তাভর্তি করে বিক্রি হচ্ছে এসব ইলিশ।

উপজেলা শহরের কাছাকাছি থাকা গৃহবধূ মিনা বেগম জানান, মানুষের মুখে শুনে কৌতুহলি হয়ে তিনি এসেছেন মাছ কিনতে। সঙ্গে একটি চটের ব্যাগও নিয়ে এসেছেন। মাত্র ৫০০ টাকায় পাঁচ কেজি পরিমাণ ২৩টি ছোট-বড় ইলিশ কেনেন এক জেলের কাছ থেকে।

তিনি বলেন, মাছ ধরা এখন নিষেধ। কিন্তু জেলেরা তো থেমে নেই। আর দাম কম পেয়ে শত শত মানুষ মাছ কিনছেও। মাছ না ধরলে তো কিনতে আসতাম না। তাছাড়া আমি না কিনলেও তো বিক্রি থেমে থাকছে না।

এছাড়া বোরকা পরে করে নারীদেরকেও এসব মা ইলিশ বিক্রি করতে দেখা গেছে।

জেলেদের সাথে কথা বলতেই শফিক নামের এক জেল বলেন, আমি প্রথম দিকে এ সময় মাছ ধরতে যেতাম না। গত বছরও ধরিনি। কিন্তু অন্যরা তো ঠিকই ধরেছে। তারা মাছ বিক্রি করে টাকাও কামাচ্ছে। তাই এবার আমিও মাছ ধরতে নেমেছি। তবে দিনে একবারই পদ্মায় জাল ফেলি। সংসারের খরচ তো আর থেমে নেই। তাই মাছ ধরতেই হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সতর্ক থাকতে হয়। পুলিশের হাতে অনেকে ধরাও পড়েছে।

আইনশৃংখলা বাহিনীর কর্মকর্তারা জানান, মা ইলিশ রক্ষার্থে পদ্মা নদীতে এই মৌসুমে প্রতিনিয়তই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। বিভিন্ন সময় মাছ ও জালসহ জেলেদের আটক করে জরিমানা কিংবা কারাদণ্ড প্রদান করা হচ্ছে। এ ছাড়াও দিনের পুরোটা সময়ই আমরা পদ্মায় নজর রাখছি। তাছাড়া জেলেদের মাছ ধরা বন্ধে সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি যারা মাছ কিনতে আসছেন তাদেরও সচেতন করতে চেষ্টা করছি। তারপরও সাধারণ মানুষের ভিড় পদ্মার পাড়ে লেগেই থাকে।

তবে অনেক সময় আমাদের অভিযানের আগাম বার্তা পেয়ে সটকে পড়ে জেলেরা। কিন্তু প্রজনন মৌসুমে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

For Advertisement

750px X 80px Call : +8801911140321

কারেন্ট নিউজ বিডি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। 

পাঠকের মতামত: